অবৈধ অভিবাসীদের ধরতে কুয়েতে অভিযান, যে দেশ রয়েছে আতঙ্কে

সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ শেষ হতেই অবৈধ অভিবাসীদের ও আবাসিক আইন লঙ্ঘনকারীদের গ্রেফতার করতে মাঠে নেমেছে কুয়েতে নিরাপত্তা বাহিনী।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় সোমবার (১ জুলাই) ভোর থেকেই শুরু হয়েছে এ অভিযান।

১৭ মার্চ থেকে শুরু হওয়া সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ ১৭ জুন পর্যন্ত থাকলেও কুয়েতের প্রথম উপ-প্রধানমন্ত্রী এবং প্রতিরক্ষা ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ ফাহাদ ইউসুফ আল-সাবাহ এর নির্দেশনায় মেয়াদ বাড়িয়ে ৩০ জুন পর্যন্ত করা হয়েছিল।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে স্থানীয় দৈনিক আল রাই জানিয়েছে, কুয়েতে এক লাখ বিশ হাজার অবৈধ অভিবাসী রয়েছে। যাদের মধ্যে সাধারণ ক্ষমার সুযোগ গ্রহণ করেছে মাত্র ৩৫ হাজার। ৮৫ হাজার এই সুযোগ গ্রহণ করে নাই।

রেসিডেন্সি অ্যাফেয়ার্স জেনারেল ডিপার্টমেন্টের সহকারী পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাজিয়াদ আল-মুতাইরি প্রবাসীদের সতর্ক করে বলেন, ‘বর্ধিত সময়সীমা শেষ হয়ে গেলে কোনও আইন লঙ্ঘনকারী পালিয়ে থাকতে পারবে না। রেসিডেন্সি অ্যাফেয়ার্স ইনভেস্টিগেশন, ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন, পাবলিক সিকিউরিটি এবং রেসকিউ সার্ভিসেস বিভাগ থেকে নিরাপত্তা কর্মীরা এই অভিযানে অংশগ্রহণ করবেন, প্রয়োজনে বিশেষ বাহিনীর সহায়তা নেওয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘ অভিযান ২৪ ঘণ্টা চালানো হবে। যাদের গ্রেফতার করা হবে তাদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং সংশ্লিষ্ট দেশের দূতাবাসগুলিতে আঙুলের ছাপ নেওয়ার পাশাপাশি আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং তাদের কুয়েত থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে। আইন লঙ্ঘনকারীদের যারা আশ্রয় দেবে তাদের বিরুদ্ধেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে কর্তৃপক্ষ।’

বাংলাদেশ অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে বাড়ানো হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা। আবাসিক ও বাণিজ্যিক এলাকার প্রবেশপথে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। চলছে গ্রেফতার অভিযান। কুয়েতজুড়ে এমন নিরাপত্তা অভিযান শুরু হওয়ার পর আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

Leave a Comment